টি-২০ ক্রিকেট হলো জাঙ্কফুড, রাস্তার পাশের খাবার: রাঙাতুঙ্গা

Rantunga

খেলারহাট ডেস্ক:

গ্ল্যামার আর বিনোদনের এক জমপেশ প্যাকেজ হিসেবেই ভাবা হয় টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটকে। তবে এই টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটকে জাঙ্ক ফুড বা রাস্তার খাবার ছাড়া আর কিছু ভাবতে নারাজ শ্রীলঙ্কার বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক অর্জুনা রানাতুঙ্গা। অবশ্য শুরু থেকেই টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের বড় সমালোচক তিনি। হাঁটি হাঁটি পা পা করে অনেকদুর চলে এলেও এখনো টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের বিপক্ষেই অবস্থান লঙ্কান এই কিংবদন্তির। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটকে ‘জাঙ্ক ফুড’ আখ্যায়িত করা রানাতুঙ্গা মনে করেন, অর্থকড়ির ঝনঝনানির কাছে ক্রিকেট তার চিরাচরিত সৌন্দর্য হারাচ্ছে।

কলম্বোতে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে লঙ্কান এই কিংবদন্তি বলেন, ‘আমাদের কাছে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট ‘জাঙ্ক ফুড’ ছাড়া আর কিছু নয়। টেস্ট ক্রিকেট হলো বাসায় মায়ের হাতে রান্না করা সুষম খাবার। আর টি-টোয়েন্টিকে বলব রাস্তার ধার থেকে কিনে খাওয়া নুডলস।’
দেখো গেছে ক্রিকেটের জনক ইংল্যান্ড হলেও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট জনপ্রিয়তার শিখরে উঠেছে ভারতের ঘরোয়া লিগ আইপিএলের বদৌলতে। আইপিএল ছাড়াও এখন বিগব্যাশ, ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (সিপিএল), বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) টুর্নামেন্টগুলোর মাধ্যমে টি-টোয়েন্টি ছড়িয়ে পড়েছে সারা বিশ্বে। তবে লঙ্কান কিংবদন্তি মনে করেন, এখনকার ক্রিকেটাররা দেশের হয়ে খেলার চেয়ে টাকার পেছনে ছুটতেই বেশি পছন্দ করে।

এ প্রসঙ্গে রানাতুঙ্গার ভাষ্য, ‘আমি নিজে দেশের হয়ে খেলা এবং জেতাকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছি। তবে এখন বেশিরভাগ ক্রিকেটার টাকার পেছনে ছুটছে। আমার মনে হয়, এখন বেশির ভাগ ক্রিকেটারের লক্ষ্য আইপিএল, বিগব্যাশ বা সিপিএলে যাওয়া এবং কাঁড়ি কাঁড়ি টাকা কামানো। এ জন্যই ১৯৯৬ বিশ্বকাপজয়ী দলের ক্রিকেটারদের কথা আমি সবসময় বলি। ওরা কখনোই টাকা নিয়ে চিন্তিত ছিল না। ওরা দেশের হয়ে জেতার গৌরবকেই গুরুত্ব দিয়েছে বেশি। ওদের জন্য আমি সত্যিই গর্বিত।’

তবে রানাতুঙ্গা আশাবাদী, বাংলাদেশের তরুণ ক্রিকেটাররা ভুল করবে না। তারা দেশকে প্রতিনিধিত্ব করাটাকেই এগিয়ে রাখবে। লঙ্কান বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক বলেন, ‘দেশের হয়ে খেলার চেয়ে বড় কিছু নেই। দেশের ব্লেজার, টাই, টুপি এগুলো কখনও অর্থের সঙ্গে তুলনা করি না। আপনি দেশের হয়ে খেললে টাকা পাবেন। আমি সবসময় বলি, দেশের জন্য খেলো, স্কুলের জন্য খেলো, ক্লাবের জন্য খেলো। টাকার দিকে তাকিয়ে ক্রিকেট খেলো না। কিন্তু বেশিরভাগ ক্রিকেটারই এটা করে। তারা বড় ভুল করে। আমি আশা করবো, বাংলাদেশের ক্রিকেটে এটা ঘটবে না। মাতৃভূমির প্রতিনিধিত্ব করার চেয়ে বড় আর কিছু হতে পারে না।’

খেলারহাট ডটকম/ টিআই

Copyright © 2017 khelarhaat.com all rights reserved. Developed by Website11